বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
● পদ্মা সেতুতে পরীক্ষামূলক ট্রেন চলাচল উদ্বোধন      ● সাড়ে ৬ ঘণ্টা পর বঙ্গবাজারের আগুন নিয়ন্ত্রণে      ● বঙ্গবাজারের আগুন নেভাতে হাতিরঝিল থেকে পানি নিচ্ছে হেলিকপ্টার      ● বঙ্গবাজারে অগ্নিকাণ্ডের খোঁজখবর রাখছেন প্রধানমন্ত্রী      ● বঙ্গবাজারে ফায়ার সার্ভিসের ৫০ ইউনিট, ৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন      ● ৫ ঘণ্টায়ও নেভেনি বঙ্গবাজারের আগুন      ● ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরে হামলা, টিয়ারশেল নিক্ষেপ      ● আগুন নেভাতে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের সাথে নৌ-সেনা ও বিমানবাহিনী      ● বঙ্গবাজারের অগ্নিকাণ্ড: আশপাশের ৪ ভবনে ছড়িয়েছে আগুন      ● জ্বলছে বঙ্গবাজার : প্রতিনিয়ত বাড়ছে আগুনের তীব্রতা     
শান্ত-মুশফিকের ব্যাটে সিলেটের লড়াকু পুঁজি
খেলা ডেস্ক
প্রকাশ: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ , বৃহস্পতিবার ০৮ : ০২ পিএম   প্রদর্শিত হয়েছে ৮০৩৪ বার

বিপিএলের নবম আসরে দেশি ক্রিকেটারদের জয়জয়কার দেখা গেল ফাইনালেও। ব্যাট হাতে ফের জ্বলে উঠেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। সেই সঙ্গে মুশফিকুর রহিমের দারুণ ইনিংসে ভর করে প্রথমবার ফাইনালে ওঠা সিলেট চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছে কুমিল্লাকে।


বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) মিরপুর শের-ই বাংলা স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে সিলেট স্ট্রাইকার্স নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রান সংগ্রহ করেছে । সিলেটের হয়ে অর্ধশতক করেছেন মুশফিকুর রহিম ও নাজমুল হোসেন শান্ত।


এদিন টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দুর্দান্ত হয় সিলেটের। আন্দ্রে রাসেলের করা প্রথম ওভারেই ১৭ রান তুলে নেন শান্ত-তৌহিদ হৃদয় জুটিয়। এর মধ্যে শান্ত একাই মারেন তিনটি চার। সে ওভারে আরও একটি চার আসে লেগ বাই থেকে।


তবে দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলেই উইকেট হারায় সিলেট। শূন্য রানেই তৌহিদকে ফিরিয়ে দেন তানভীর ইসলাম। সিলেটের রান তখন ১৭। ওয়ান ডাউনে নেমে আগের ম্যাচে ১৬ বলে ২৮ রান করা অধিনায়ক মাশরাফী এই ম্যাচেও নেমেছিলেন তৌহিদের বিদায়ের পর। ৪ বলে ১ রান করেন তিনি।


তৃতীয় উইকেট জুটিতে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে দারুণ এক পার্টনারশিপ গড়েন শান্ত। ৫৬ বল স্থায়ী জুটিতে ৭৯ রান যোগ করেন তারা। এদিন অর্ধশতকের দেখা পান শান্ত। আসরের চতুর্থ অর্ধশতক তুলে নিতে শান্তকে খেলতে হয়েছে ৩৭ বল। ৮টি চারের মারে এই রান করেন তিনি। আগেই এ আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের জায়গাটা দখলে নেওয়া শান্তর সামনে হাতছানি দিচ্ছিল বেশ কয়েকটি রেকর্ড। এদিন অর্ধশতক তুলে নেওয়ার পথে দুটি রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন তিনি।


বিপিএলে এতদিন এক আসরে সবচেয়ে বেশি রান করা বাংলাদেশি খেলোয়াড়ের রেকর্ডটা ছিল মুশফিকুর রহিমের দখলে। ২০১৯/২০ মৌসুমে খুলনা টাইগার্সের হয়ে ৪৯১ রান করেছিলেন মুশফিক। এদিন ৪০ রান করেই সে রেকর্ড ভেঙে দেন শান্ত। ৪৯২ রানে পৌঁছে এক আসরে সর্বোচ্চ রান করা বাংলাদেশি খেলোয়াড়ের রেকর্ডটি নিজের করে নেন এই বাঁহাতি।


বিপিএলের এক আসরে ৫০০ রান করা প্রথম বাংলাদেশিও শান্ত। ৪৮ রানে পৌঁছে এই রেকর্ডটিও নিজের করে নিয়েছেন তিনি। এদিন শান্তর সামনে সুযোগ ছিল বিপিএলে এক আসরে সবচেয়ে বেশি রান করার রেকর্ডটিও নিজের দখলে নেওয়ার। কিন্তু মঈন আলির বলে বোল্ড হয়ে সেই সুযোগ হারিয়েছেন তিনি। আউট হওয়ার আগে ৪৫ বলে ৬৪ রান করেন শান্ত। তার ইনিংসে ৯টি চারের পাশাপাশি ছিল ১টি ছয়ের মার।


শান্তর বিদায়ের পর মুশফিক জিম্বাবুয়ের অলরাউন্ডার রায়ান বার্লকে নিয়ে রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টা করেন। তবে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি বার্ল। মুতাফিজুর রহমানের বলে মোসাদ্দেক হোসেনের হাতে ধরা পড়ার আগে ১১ বলে ১৩ রান করেন তিনি। আউট হওয়ার দুই বল আগে অবশ্য একবারক্যাচ দিয়েছিলেন তিনি। সে ক্যাচ ধরতে ব্যর্থ হন ফিজ।


বার্লের বিদায়ের পরের ওভারেই নারিন ফিরিয়ে দেন থিসারা পেরেরাকে। মুখোমুখি হওয়া প্রথম বলেই বোল্ড হয়ে যান এই লঙ্কান অলরাউন্ডার। এরপর জর্জ লিন্ডেও ব্যর্থ হন ব্যাট হাতে। মুস্তাফিজের বলে লিটনের হাতে ধরা পড়ার আগে ৬ বলে করেন ৯ রান।


বাকিদের আসা যাওয়ার মাঝেই অর্ধশতক তুলে নেন মুশফিক। এবারের বিপিএলে এটিই তার প্রথম অর্ধশতক। বলে রান করেন তিনি। ৪৮ বলে ৭৪ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। এই ইনিংস খেলার পথে হাঁকান ৫টি চার ও ৩টি ছয়।

« পূর্ববর্তী সংবাদ পরবর্তী সংবাদ »





  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ অঞ্জন কর

প্রকাশকঃ জেরীফ আফতাব কর্তৃক

জেড টাওয়ার (৬ষ্ট তলা), বাড়ী- ০৪, রোড-১৩২, গুলশান-১, ঢাকা-১২১২ থেকে প্রকাশিত

ইমেইলঃ tribunenewsbd@gmail.com

© 2022 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত || tribunenewsbd.com