বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
● পদ্মা সেতুতে পরীক্ষামূলক ট্রেন চলাচল উদ্বোধন      ● সাড়ে ৬ ঘণ্টা পর বঙ্গবাজারের আগুন নিয়ন্ত্রণে      ● বঙ্গবাজারের আগুন নেভাতে হাতিরঝিল থেকে পানি নিচ্ছে হেলিকপ্টার      ● বঙ্গবাজারে অগ্নিকাণ্ডের খোঁজখবর রাখছেন প্রধানমন্ত্রী      ● বঙ্গবাজারে ফায়ার সার্ভিসের ৫০ ইউনিট, ৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন      ● ৫ ঘণ্টায়ও নেভেনি বঙ্গবাজারের আগুন      ● ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরে হামলা, টিয়ারশেল নিক্ষেপ      ● আগুন নেভাতে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের সাথে নৌ-সেনা ও বিমানবাহিনী      ● বঙ্গবাজারের অগ্নিকাণ্ড: আশপাশের ৪ ভবনে ছড়িয়েছে আগুন      ● জ্বলছে বঙ্গবাজার : প্রতিনিয়ত বাড়ছে আগুনের তীব্রতা     
উসকানিমূলক প্রশ্নপত্র: পাঁচ শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: ১৩ নভেম্বর ২০২২ , রবিবার ০৩ : ১১ পিএম   প্রদর্শিত হয়েছে ৮০৫৩ বার

চলমান এইচএসসি পরীক্ষায় ঢাকা বোর্ডের বাংলা প্রথম পত্রে সাম্প্রদায়িক উসকানিমূলক প্রশ্নপত্র তৈরি করা প্রশান্ত কুমার পালসহ পাঁচ শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করা হয়েছে। ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বেগম শান্তা আক্তারের আদালতে শিমু আহম্মেদ নামের এক পরীক্ষার্থী রোববার (১৩ নভেম্বর) বাদী হয়ে এ মামলার আবেদন করলে আদালত তা গ্রহণ করে আদেশের জন্য রেখেছেন। বাদী পক্ষের আইনজীবী আল মামুন রাসেল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নিশ্চিত করেছেন। 


মামলার আবেদনে আসামিরা হলেন- নড়াইলের সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজের সহযোগী অধ্যাপক সৈয়দ তাজউদ্দীন শাওন, সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের সহযোগী অধ্যাপক মো. শফিকুর রহমান, মির্জাপুর ইউনাইটেড কলেজের সহকারী অধ্যাপক শ্যামল কুমার ঘোষ ও কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা আদর্শ কলেজের সহকারী অধ্যাপক অধ্যাপক মো. রেজাউল করিম। তারা সবাই প্রশ্নপত্র পরিশোধনের (মডারেশন) দায়িত্বে ছিলেন। 


মামলার অভিযোগে গত ৬ নভেম্বর অনুষ্ঠিত পরীক্ষার প্রশ্নটি সংযোজন করে বলা হয়, আসামিরা এরূপ প্রশ্ন তৈরি করার মাধ্যমে দেশের মুসলমান জাতিকে ও ইসলাম ধর্মকে সরাসরি হেয় প্রতিপন্ন করেছেন। এমন প্রশ্নের মাধ্যমে প্রশ্নকারী ও প্রশ্ন পরিশোধকগণ মুসলিম জাতি ও ইসলাম ধর্মকে হেয় প্রতিপন্ন করে শিক্ষার্থীদের মধ্যে ও সমাজে মুসলিম জাতির সম্মানহানি করেন। এসব তথ্য সমাজে অস্থিতিশীলতা তৈরি করে। 


আইনজীবী রাসেল বলেন, ‌‘চলমান এইচএসসি বাংলা প্রথম পত্র প্রশ্নপত্রে ধর্মীয় অবমাননাকর ও সাম্প্রদায়িক উসকানি দেওয়ায় দণ্ডবিধি ১৫৩(ক) ও ২৯৫(ক) ধারায় আদালতে মামলার আবেদন করেছি। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে তা আদেশের জন্য রেখেছেন। আমাদের বিশ্বাস আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থামূলক আদেশ প্রদান করবেন। 


« পূর্ববর্তী সংবাদ পরবর্তী সংবাদ »





  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ অঞ্জন কর

প্রকাশকঃ জেরীফ আফতাব কর্তৃক

জেড টাওয়ার (৬ষ্ট তলা), বাড়ী- ০৪, রোড-১৩২, গুলশান-১, ঢাকা-১২১২ থেকে প্রকাশিত

ইমেইলঃ tribunenewsbd@gmail.com

© 2022 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত || tribunenewsbd.com